প্রবন্ধ

কি করে বলি ওরা মুসলমান

  কি করে বলি ওরা মুসলমান

  —সৈয়দা হাবিবুন্নেছা দুলন


কারবালা প্রান্তরে ছিল কি সেদিন,কোন বিধর্মী কি বা ইহুদী -খ্রিস্টান?
না,না,না,তারা ছিল মুসলমান।
আসলেই কি তারা ছিল মুসলমান
নবী বংশের রক্ত পিপাসু বেঈমান।

ভুলে গেছ কি হে মুসলমান নুর নবী ﷺ রঁ পবিত্র বয়ান,
আমি জ্ঞানের শহর আলী তার দরজা।
সেই দরজাকে হত্যা করে যারা খোঁজে নেয় মজা।
সেই তাদেরকে কিভাবে আখ্যায়িত করব মোরা তারা মুসলমান
হতে পারে তারা মুখোশধারী আহলে বায়াতের রক্ত পিপাসু বেঈমান।

সাইয়্যেদা বতুল মা ফাতেমা যাহরা,হায়দারে কাররার হযরত আলী
হাসনাইনে কারীমাঈন হাসান-হোসাইন তাঁদেরই সন্তান নবী কাননের পুষ্পকলি।

বলেছেন নুর নবী হাবীবে খোদা,এরাই আমার আহলে বায়াত প্রিয়তমজন
এদেরে আমি ভালবাসি ভালবাসবো তাদেরেও যারা তাঁদেরে ভালবেসে করবে পরম যতন।

এজিদ -শীমার ওরা কি জানতো না নবীﷺরঁ বাণী
জেনে শুনে ও করল যারা নিস্টোর রাহাজানি।

তবুও কি তাদের বলবো মোরা তারা মুসলমান
দুধের শিশুকেও দেয়নি রেহাই জালিম-নাদান।

বলেছেন নবীﷺ যে আমার আত্নীয়কে কষ্ট দেয়, সে যেন প্রকৃতপক্ষে আমাকেই কষ্ট দেয়
কি বলবো তাদের, যারা দ্বীন ছেড়ে দিয়ে দুনিয়াকেই বুকে আলিঙ্গন করে নেয়।

আঁকড়ে ধর তোমরা আল-কোরআন ও আহলে বায়াত,রাসুলে খোদার বাণী
তাতে হবেনা কভূ পথ ভ্রষ্ট।

সেই আহলে বায়াতকে এজিদ-শীমারের দল অত্যাচারে জর্জরিত করে দিলো নিদারুণ কষ্ট
পৃথিবীর ইতিহাসে আর কোন জালিম কি কভূ রেখেছিল নির্মমতার এমন করুণ সাক্ষর।

তৃষ্ণার্ত অবোধ শিশু হযরত আলী আজগর,তীরের আঘাতে করে দিলো তাঁকেও নিরব নিথর
হেন উৎপীড়ন নেই যা করেনি প্রয়োগ।

নুর নবীﷺরঁ প্রিয় পরিজনদের উপর আকাশ-পৃথিবী সেদিন হয়েছিল প্রকম্পিত
লালে লাল হয়েছিল আসমান,কেঁপেছিল জমিন
গুণাহগারদের মুক্তির উসিলা রাসূলের আহলে বায়াত কারবালা ময়দান
তাঁদেরই রক্তে সেদিন হয়েছিল রঙিন।

দলিত মথিত করে দিয়ে নবীﷺরঁ বাগান
তবুও করে দাবী তারা নাকি মুসলমান।

ধিক,শত ধিক ভ্রান্ত মেকি ঈমানদারের দল
ধর্মের লেবাসে সজ্জিত হয়ে করল কত ছল বলেছিল হায়েনার দল আমরাও তো মুসলমান
আল্লাহ এবং রাসুলﷺ মানি,মানি আল-কোরআন।

আল-কোরআনের সূরা শুরা তেইশ নং আয়াতে মহান আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামিন ফরমান,
হে রাসুলﷺ! আপনি বলেদিন,আমার পরিজনদের মহব্বত ব্যতীত তোমাদের কাছে চাইনা আমি অন্য কোন রকম প্রতিদান।

আল্লাহ এবং রাসুলﷺরঁ বাণী উপেক্ষা করে যাহরা কানন উজাড় করে দিল যারা,
সেইসব পাপিষ্ঠ এবং ডোরা কাটা শীমারকে কেমন তরো বিশেষণে আখ্যায়িত করব মোরা?

তারা কি হতে পারে কখনো মুসলমান বলে গণ্য! সামান্য মমতাও ছিলনা যাদের নবী বংশের জন্য।

এখনো আছে এজিদ-শীমারের দোসরেরা, আজো যদি শুনে আহলে বায়াতের শান-মান
শিরক, শিরক বলে উঠে ঘেউ ঘেউ করে বলে ধ্বংস করে দিচ্ছে তোমাদের ঈমান।

ওহে নবীর উম্মত, আর থেকোনা বেহুঁশ,উন্মোচন করে দাও পথ ভ্রষ্টদের মুখোশ
কারবালা ময়দানে সেদিনই হয়েছিল সত্য-মিথ্যা তথা হক্ব -বাতিল নিরুপন।

লক্ষ-কোটি দুরুদ-সালাম নাও গো মোদের হে প্রিয় রাসুলﷺ ও তাঁর প্রিয়তম পরিজন।

1 Comment

  • আল্লাহুম্মা সাল্লি আল মোহাম্মদ ওয়াআলে মোহাম্মদ

মতামত দিন