প্রবন্ধ

ইমাম হােসেইন (আ.)-এর প্রতিরক্ষায় জিনদের সেনাবাহিনী।

বেশ কিছু সংখ্যক মুসলমান জিনের দল ইমাম হােসেইন (আ.)-এর কাছে এলাে এবং বললােঃ “হে আমাদের অভিভাবক, আমরা আপনার অনুসারী ও সাহায্যকারী; আর আমরা আপনার আদেশ পালন করবাে, তা যা-ই হােক। আপনি যদি চান আমরা এখানে থামবাে এবং আপনার সব শত্রুকে হত্যা করবাে।”

ইমাম বললেনঃ “আল্লাহ তােমাদের ভালাে পুরস্কার দিন, তােমরা কি কোরআন পড়াে নি যা আমার নানার কাছে নাযিল হয়েছিলাে; যেখানে বলা হয়েছেঃ “তােমরা যেখানেই থাকো, মৃত্যু তােমাদের ধরে ফেলবে, এমনও যদি হয় তােমরা উচু (ও শক্তিশালী) ইমারতে থাকে না কেন।”-(সূরা নিসা: ৭৮) এবং বলা হয়েছেঃ “যাদের জন্য কতল হওয়া নির্ধারিত হয়েছে তারা অবশ্যই সে জায়গায় চলে যেতে যেখানে তারা (এখন নিহত হয়ে) পড়ে আছে।” তাই আমি যদি এখানে থেকে যাই, কিভাবে এ হতভাগ্য জাতিকে পরীক্ষা করা হবে? এবং কে কারবালায় আমার কবরে শুয়ে থাকবে? যখন আল্লাহ পৃথিবী সম্প্রসারণ করলেন (সে দিন) তিনি আমার জন্য সেই ভূমি পছন্দ করলেন এবং একে আমার অনুসারীদের আশ্রয়স্থল বানিয়েছেন যেন তারা সেখানে শান্তি খুঁজে পায় এ পৃথিবীতে এবং আখেরাতে। আমার কাছে এসাে শনিবার দিন, কারণ আমি সপ্তাহের শেষে দশ তারিখে শহীদ হবাে। আমার পরিবারের, বন্ধুদের, ভাইদের এবং আত্মীয়দের কেউ আর বেঁচে থাকবে না আমার মৃত্যুর পর। এরপর আমার মাথা ইয়াযীদের কাছে নিয়ে যাওয়া হবে।”

জিন বললােঃ “হে আল্লাহর বন্ধু এবং আল্লাহর বন্ধুর সন্তান, যদি আপনার আদেশ পালন আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক না হতাে এবং হত্যা করা অবৈধ না হতাে আমরা অবশ্যই আপনার সমস্ত শক্রকে হত্যা করে ফেলতাম তারা আপনার কাছে পৌছানাের আগেই।”

ইমাম বললেনঃ “আল্লাহর শপথ আমরা তােমাদের চাইতে তাদেরকে হত্যা করার জন্য বেশী যােগ্য। কিন্তু উদ্দেশ্য হচ্ছে কাউকে হত্যা করা উচিত (উপযুক্ত) প্রমাণ ও যুক্তিসহ এবং হেদায়েত করা উচিত প্রমাণ ও যুক্তিসহ।” অন্য কথায় ইমাম চান নি যে তারা ধ্বংস হােক তাদের কাছে প্রমাণ উপস্থিত করার আগে।(এখানেই তা শেষ হয়েছে যা মুহাম্মাদ বিন আবি তালিবের বইতে উল্লেখ ছিলাে।

উম্মুল মুমিনীন হযরত উম্মে সালমা (রাঃ) বলেনঃআমি জ্বীন সম্প্রদায়কে ইমাম হোসাইন (আঃ) এর শাহাদতে কাঁদতে ও বিলাপ(মাতম) করতে শুনেছি।”

গ্রন্থসূত্রঃ শােকার্তের দীর্ঘশ্বাস (প্রথম খণ্ড) লেখকঃ আল্লামা আব্বাস বিন মুহাম্মাদ রেযা আল কুম্মি (রহঃ)/তারিখুল খুলাফা, সিয়ুতি পৃষ্ঠাঃ ১১৩/তাজকেরাতুল খাওয়াস, পৃষ্ঠাঃ ১৫২/ সাওয়ায়েকে মোহরেকা, আল্লামা শীবলি নোমানি, পৃষ্ঠাঃ ৩১৮; সেররে শাহদাতাইন, পৃষ্ঠাঃ ১৩৪/সাওয়ায়েকে মুহরিকা,পৃঃ১৯১/-আল বেদায়া ওয়ান নেহায়া,/২০১পৃঃ)


সিপাহসালার ইনস্টিটিউশন | আগস্ট ২০২০এস এইচ হক

মতামত দিন