প্রবন্ধ

জামানার মুনাফিক

জামানার মুনাফিক
সৈয়দা হাবিবুন্নেছা দুলন


অন্তর ফেটে বিদীর্ণ রক্তাক্ত কলিজা
নব্যজ্ঞানী জানেনা বুঝি আলী জ্ঞানের দরোজা।

কেমন করে সইবে অন্তর,কি করে শান্ত রাখিবো প্রান
যেথায় মুমিনের হৃদপিন্ড আহত করেছে সেই সে স্থান।

পূতঃ পবিত্র আহলে বাইত স্বয়ং খোদায়ী ঘোষনা
কোন সে মোহে ওহে নব্যজ্ঞানী করছো এমন মিছে বাহানা।

ধরার বুকে শুভাগমন যার মহিমাময় খোদার ঘরে
মুমিনের মাওলা খেতাব তাই বুঝি শোভিত তাঁরই তরে।

আলী যেদিকে সত্য সেদিকে এটাই তো প্রিয় নবীজির শিক্ষা
প্রশ্নবিদ্ধ নয় কি তবে নব্যজ্ঞানীদের গুরুর দীক্ষা।

তবে কি আমরা ধরে নিতে পারি তোমরাই সেই নামাজিদের চেলা,
হুসাইনকে শহীদ করে বলেছিলো যারা নামাজ আদায় করো,নেই বেশী বেলা।

ওহে নামাজি,হবে কি কবুল তোদের এই মেকি ইবাদত
খোদায়ী আদেশ যেখানে আহলে বাইতের মহব্বত।

মিছে কভূ নয় জানি রাসুলের বাণী
নিজেই খুলেছে মুখোশ জামানার জ্ঞানী।

সেই তো আলীর বিরোধি যারা জামানার মুনাফিক
চিনে নাও মুসলিম দিয়ে যাও ধিক আর ধিক।

নিজেদের ব্যবহারে করেছে তারা পরিস্ফুট
যে যাকে ভালোবাসে তার প্রেমেতেই রয় সে অটুট।

দৃঢ়স্বরে মুসলিম দিয়ে যাও ধিক্কার,
মুনাফিক বর্জনে কোনরুপ নয় ছাড়।

তাদের তরে কেবলই লানত শত সহস্র হাজারবার
করো হে কবুল ওহে প্রিয় আহলে বায়াতে আতহার।

তোমাদের প্রেমে রাখিও অটুট প্রেমিক সবারে আজীবন
নাও অফুরান দুরুদ ও সালাম প্রিয় নবীজির প্রিয় পরিজন।

নুহের কিস্তী জগত কিরণ,রবের প্রিয় পাক পাঞ্জাতন।

মতামত দিন